বৃহস্পতিবার, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১১:৫৮ অপরাহ্ন

নোয়াখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার অভাবে রোগীর মৃত্যু: তদন্তে কমিটি গঠন

বাংলার চোখ ডেস্ক / ২ বার দেখেছেন
হালনাগাদ : শনিবার, ৩১ জুলাই, ২০২১, ১১:৩৪ অপরাহ্ণ

নোয়াখালীর সেনবাগের সরকারি হাসপাতালের গেটে তালা লাগানো থাকায় চিকিৎসার অভাবে মনোয়ারা বেগম (৭০) নামে এক বৃদ্ধার মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। শুক্রবার (৩০ জুলাই) দিবাগত রাত সাড়ে ১২টায় সেনবাগ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এ ঘটনা ঘটে।

 

শনিবার (৩১ জুলাই) সকালে বৃদ্ধার সন্তান মো. দেলোয়ার স্বপন অভিযোগ করে জানান, শুক্রবার রাত সাড়ে ১২টায় উপজেলার কেশারপাড় ইউনিয়নের খাজুরিয়া গ্রাম থেকে শ্বাসকষ্ট ও হার্টের সমস্যা নিয়ে তার বৃদ্ধ মাকে সেনবাগ সরকারি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান তারা। এ সময় জরুরি বিভাগ ও সরকারি হাসপাতালের ভেতরে প্রবেশ করার গেটে তালা ঝুলতে দেখে কর্তব্যরতদের ডাকাডাকি করেও কোনো সাড়া পাননি। অনেকক্ষণ পর ঘুম থেকে জেগে ওঠা এক স্টাফ বৃদ্ধাকে কোনো জরুরি চিকিৎসা সেবা না দিয়ে বেসরকারি ক্লিনিক থেকে ইসিজি করে নিয়ে আসতে বলেন।

স্বপন আরও জানান, ততক্ষণে তার মায়ের শ্বাসকষ্ট বেড়ে গেলে রাত পৌনে ১টায় সেনবাগ প্রেসক্লাবে ফোন করে সেখানকার অক্সিজেন ব্যাংক অক্সিজেন সাপোর্ট দেয়া হয়। পরে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে স্বপন তার মাকে নিয়ে শহরের সেন্ট্রাল হসপিটালে নিয়ে গেলে সেখানে ডাক্তার না থাকায় ইসিজিসহ প্রয়োজনীয় সেবা না পেয়ে রাত ১টায় আবারও সরকারি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চত্বরে নিয়ে যান।

তখন হাসপাতালের জরুরি বিভাগে না নিয়ে একজন নারী চিকিৎসক সিএনজিচালিত অটোরিকশাতে থাকা বৃদ্ধাকে দেখে মৃত ঘোষণা করেন।

স্বপনের অভিযোগ, চরম অবহেলা ও চিকিৎসার অভাবে তার মায়ের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় তদন্ত করে দায়ীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা দাবিও জানান তিনি।

এ ব্যাপারে কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. জাহানারা আরজু বলেন, ‘রাত ১টায় খবর পেয়ে বৃদ্ধাকে দেখেছি। তার কার্ডিয়াক ও শ্বাসকষ্ট ছিল। মুহূর্তের মধ্যে তিনি মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন।’

আবাসিক মেডিকেল কর্মকর্তা ডা. রফিকুল ইসলাম বলেন, ‘করোনাকালে জরুরি বিভাগের একটি গেটে তালা ছিল। কর্তব্যরত চিকিৎসক খবর পেয়ে রোগীকে দেখতে ছুটে আসেন।’

শনিবার রাতে এ বিষয়ে নোয়াখালীর সিভিল সার্জন ডা. মাসুম ইফতেখার বলেন, ‘সেনবাগ সরকারি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনায় সোনাইমুড়ীর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা (ইউএইচএফপিও) ডা. মইনুল ইসলামকে প্রধান করে তিন সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।’

 


এই বিভাগের আরও খবর
Theme Created By Uttoronhost.com