শুক্রবার, ০৬ অগাস্ট ২০২১, ০৭:২০ পূর্বাহ্ন
বিজ্ঞপ্তি
* To read Daily Banglar Chokh News in different languages ​​by Google Translator, going to `Select Language' option in the main menu.* ডেইলি বাংলার চোখের সংবাদ গুগল ট্রান্সলেটর দ্বারা বিভিন্ন ভাষায় পড়তে মেইন মেনুতে সিলেক্ট ল্যাংগুয়েজ অপশন এ যেয়ে ভাষা নির্ধারণ করুন* गूगल अनुवादक द्वारा दैनिक बांग्ला आई न्यूज को विभिन्न भाषाओं में पढ़ने के लिए, मुख्य मेनू में भाषा का चयन करें विकल्प पर जाकर भाषा का चयन करें।*

খাদ্য অধিদপ্তরের সাড়ে ১৩ টন চাউল কেন সাইফুলের গোডাউনে?

মুন্সী শাহীন আহমেদ (জুয়েল)
হালনাগাদ : বৃহস্পতিবার, ২৯ এপ্রিল, ২০২১, ১১:৪৯ অপরাহ্ণ

কুষ্টিয়া সদর উপজেলার বটতৈল ইউনিয়নের কবুরহাট মাদ্রাসা পাড়ার সাইফুলের ভাড়াকৃত গোডাউনে সাড়ে ১৩টন চাউলের মজুদ পাওয়া গেছে। গোডাউনের মালিক তালেব এর থেকে সাইফুল ভাড়া নিয়ে গোডাউনটি চালাচ্ছে।

সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, “শেখ হাসিনার বাংলাদেশ, ক্ষুধা হবে নিরুদ্দেশ” স্লোগানের খাদ্য অধিদপ্তরের সিল সম্বলিত ৩০ কেজির বস্তার সর্বমোট সাড়ে ১৩টন সরকারী চাউল ঐ গোডাউনে মজুদ আছে।

গোডাউনের মালিক সাইফুল জানান, কুষ্টিয়া পুলিশ লাইন থেকে এই সাড়ে ১৩টন চাউল তিনি ৩৮টাকা দরে ক্রয় করে ৪০টাকা দরে বিক্রি করছেন। কিন্তু চাউল ক্রয়ের বৈধ কোন কাগজপত্র দেখাতে পারেন নি।

বিষয়টি জানার পর থেকেই উপস্থিত সাংবাদিকরা প্রশাসনের বিভিন্ন পর্যায়ে যোগাযোগ করতে থাকলেও প্রায় ৩ ঘন্টা ফলাফল শূন্য। এরপর ৯৯৯ নম্বরে ফোন করে জেলা পুলিশকে অবগত করার পর জগতী ক্যাম্পের আইসি এস আই মেহেদী ঘটনাস্থলে পৌঁছানোর পর দুর্নীতিবাজ সাইফুল ঘটনাটিকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করতে নতুন নাটকের জন্ম দেন।

একজন সাংবাদিক তার কাছে টাকা চেয়েছেন বলে নাটক তৈরী করেন। এই নাটকে তার দশম শ্রেণীতে পড়ুয়া ছেলেও মোবাইল হাতে নিয়ে নিজেকে বড় ইউটিউবার পরিচয় দিয়ে উচ্চস্বরে উপস্থিত সকলের সামনে তেড়ে আসেন।

তারপর টাকা চাওয়ার মিথ্যা নাটকের অভিনয়ে তিনি একজন সাংবাদিকের উপরে চড়াও হন। পরে জনগনের উপস্থিতিতে বিষয়টিতে সাইফুলের দোষ প্রমাণিত হলে সবাই সাইফুল ও তার ছেলেকে থেমে যেতে অনুরোধ জানান।

ঘটনাস্থলে কুষ্টিয়া মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মো: শওকত কবীর ঘটনাস্থলে উপস্থিত হলে তার সামনেও সাইফুল ও তার ছেলে একই নাটক মঞ্চস্থ করার চেষ্টাকালে তিনি ভিত্তিহীন কথাবার্তা না বলার জন্য বলেন।

তারপর তিনি গোডাউন পরিদর্শন করে ভিতরে সরকারী বস্তায় চাউল মজুদ দেখতে পান। তিনি এই গোডাউন বন্ধ রাখার জন্য বলেন। আগামীকাল সকালে খাদ্য অধিদপ্তরের পক্ষ থেকে তদন্ত টিম আসবেন এবং তাদের প্রতিবেদনের প্রেক্ষিতে পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানান।

বিষয়টি নিয়ে কুষ্টিয়ার জেলা প্রশাসকের মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, বিষয়টি আমি এখুনি দেখছি। পরবর্তীতে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসকের সাথে মুঠোফোনে কথা হলে তিনি জানান, এ ব্যাপারে জেলা ফুড অফিসকে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

তারা তদন্ত করে ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন। ফুড পরিদর্শক মোঃ জহুরুল আলম জানান, আমরা ইতিমধ্যে বিষয়টি জেনেছি এবং তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর
Theme Created By Uttoronhost.com