শনিবার, ২৪ জুলাই ২০২১, ০৪:১৩ পূর্বাহ্ন
বিজ্ঞপ্তি
* To read Daily Banglar Chokh News in different languages ​​by Google Translator, going to `Select Language' option in the main menu.* ডেইলি বাংলার চোখের সংবাদ গুগল ট্রান্সলেটর দ্বারা বিভিন্ন ভাষায় পড়তে মেইন মেনুতে সিলেক্ট ল্যাংগুয়েজ অপশন এ যেয়ে ভাষা নির্ধারণ করুন* गूगल अनुवादक द्वारा दैनिक बांग्ला आई न्यूज को विभिन्न भाषाओं में पढ़ने के लिए, मुख्य मेनू में भाषा का चयन करें विकल्प पर जाकर भाषा का चयन करें।*

খন্ড বিখন্ড কুষ্টিয়া জেলা ছাত্রদল : অবহেলায় হারিয়ে যাচ্ছে সংগঠন

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি
হালনাগাদ : রবিবার, ১৮ এপ্রিল, ২০২১, ৪:৩৮ পূর্বাহ্ণ

কে হবেন অভিভাবক, কে নিবেন দায়িত্ব? দিন যাচ্ছে হচ্ছে বিভ্রান্ত, বাড়ছে হতাশা এবং একাধিক ভাগে বিভক্ত করছে সংগঠন। সব মিলিয়ে এক ধ্রুমজাল। ত্যাগী দের মূল্যায়ন নেই। দলের দূর সময়ে কর্মীদের একত্রিত না করে বা হয়ে বিভিন্ন গলিহলিতে একাধিক ভাগে বিভক্ত করে নাম মাত্র কর্মসূচি মাধ্যমে তৈরী হচ্ছে বর্তমান জেলা ছাত্রদল।

রাজপথে না থেকে ফটোসেশনের মধ্যদিয়ে নিজেদের রাজনীতির অবস্থানের জানান দিচ্ছে বিভিন্ন পদ প্রত্যাশিত কর্মী। ত্যাগী কর্মীরা বলেন এটাও কেন্দ্র চাচ্ছে, কর্মীরা করছে। এমন চাইনা তৃর্ণমূল কর্মীরা।

উল্লেখ্য, সংগঠনের অভিভাবক দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান জনাব তারেক রহমান এবং কেন্দ্রীয় ছাত্রদল সংগঠন এর গতিশীলতা বৃদ্ধি করতে তৈরী করেছেন বিভাগীয় টিম।

খুলনা বিভাগীয় টিম বিভাগের দশ জেলা উপজেলা ভ্রমণ সিডিউল সাজিয়ে সুনামের সাথে কাজ করেছেন। নবম জেলা কার্যক্রম শেষ করে দশম জেলা কুষ্টিয়া আসেন গতবছর তিন নভেম্বর। পুলিশের বাধাই তারা ফিরে যায় কেন্দ্রে।

পুলিশের নগ্ন বাধা দেখে জেলা ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা বিভাগীয় টিম থুয়ে পালানোর ঘটনা কে ব্যার্থতা ভাবে কেন্দ্র। তাছাড়া সদ্য বিলুপ্ত কমিটির ব্যাপারে আগাগোড়া বিভিন্ন অভিযোগ থাকায় গেলবছর ২৫ নভেম্বর প্রেস বিজ্ঞপ্তি মাধ্যমে কুষ্টিয়া জেলা কমিটি সহ সকল ইউনিটের কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করেন কেন্দ্রীয় ছাত্রদল।

প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ ছিল ছাত্রদল প্রতিটি ইউনিটের সুশৃঙ্খল, সুসংগঠিত এবং গতিশীল করতে কুড়ি দিনের ভিতর অর্থাৎ গেলবছর ১৫ ডিসেম্বর ২০২০ তারিখের ভিতর তৃণমূল নেতা কর্মীদের প্রত্যক্ষ অংশগ্রহণ মাধ্যমে জেলা কমিটি গঠন পক্রিয়া সম্পূর্ণ হবে।

কমিটি গঠন পক্রিয়া অনুযায়ী ৯ ও ১০ ডিসেম্বর ২০২০ ছাত্রদল কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক কর্মীসভা অনুষ্ঠিত হয়। কর্মী সভায় বিভাগীয় টিম জেলা নেতাকর্মীদের সাথে সাংগঠনিক আলাপ করে।

জেলার পদ প্রত্যাশিত কর্মীদের জেলায় ফিরিয়ে দেন এবং বলেন জেলায় যেয়ে কাজ করতে তারা চুলছেরা বিশ্লেষণ করে জেলায় একটি সুসংগঠিত সংগঠন উপহার দিবেন। কমিটি হবার পক্রিয়া দীর্ঘায়িত হওয়ায় একাধিক ভাবে বিভক্ত হয়ে গিয়েছে কুষ্টিয়া জেলা ছাত্রদল।

বর্তমানে অস্তিত্ব সংকটে পড়ে যাচ্ছে সংগঠন। পদ প্রত্যাশিত কর্মীরা অভিযোগ করে জানান, তারা জানে না কমিটি হবে, কি হবেনা? জানেনা হলেও কবে হবে বা কি রূপ হচ্ছে জেলার কমিটি?

তারা আরও ক্ষোভ নিয়ে বলেন সদ্য বিলুপ্ত কমিটি গেল দুই বছর পারেননি জেলা কমিটি পূর্ণাঙ্গ করতে। পারেননি কোনো ইউনিট এমনকি ওয়ার্ড কমিটি করতে।

তাই আগামীতে বিলুপ্ত কমিটির কাউকে চাইনা নেতৃত্বে। আমরা ব্যাক্তিত্ব নিয়ে রাজনীতি করি। যেমনতেমন কমিটি হলে পদত্যাগ করবো। প্রয়োজন মতে অন্যান্য অঙ্গসংগঠনের সদস্য হয়ে থাকবো।

সংগঠনের সার্বিক ব্যাপারে জেলা ছাত্রদলের আহবায়ক পদ প্রত্যাশিত কর্মী রাশেদুল ইসলাম রাশেদ বলেন, আমি ইসলামি বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদল সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক দায়িত্ব পালন করছি প্রায় একযুগ। বর্তমান কেন্দ্রীয় কমিটির আগের কমিটির সদস্য ছিলাম। প্রটোকল অনুযায়ী এইবার এমনিতেই কেন্দ্র কমিটির সম্মানজনক একটি পোস্ট আমি পাই। তাহালে জেলায় কেন যাবো?

আসোলে আমি সংগঠনকে ভালোবাসি। কুষ্টিয়া জেলায় ছাত্র রাজনীতিতে বেহাল দশা। একযুগ নেই কোনো ওয়ার্ড, ইউনিয়ন, উপজেলা, সদর এবং পৌর ও বিশ্ববিদ্যালয়, কলেজ কমিটি। আমি একজন কর্মী হয়ে আগ্রহ প্রকাশ করেছি আহবায়ক হতে। দায়িত্ব পেলে দ্রুত সময়ে সকল ইউনিটের কমিটি গুলো সুসংগঠিত করে পূর্ণাঙ্গের সময় শক্তিশালী সংগঠন জেলাতে উপহার দিয়ে ছাত্র রাজনীতি থেকে বিদায় নিবো।

কমিটি কেন হচ্ছে না জানতে চাইলে রাশেদ আরও বলেন, কমিটি কেন হচ্ছে না এটা আমার বোধগম্য নই। কেন্দ্রের কারোর কাছে জানতে চাইলে সদুত্তর পাইনি। কমিটি হওয়া না হওয়া ব্যপারে কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের সাংগঠনিক সম্পাদক সাইফ মাহমুদ জুয়েলের সাথে ফোন মাধ্যমে বারবার যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলেও (০১৭১২৬৩৭৭৫৫) ফোন বা WhatsApp এ তাকে পাওয়া সম্ভব হয়নি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর
Theme Created By Uttoronhost.com