রবিবার, ০১ অগাস্ট ২০২১, ০৪:২০ পূর্বাহ্ন
বিজ্ঞপ্তি
* To read Daily Banglar Chokh News in different languages ​​by Google Translator, going to `Select Language' option in the main menu.* ডেইলি বাংলার চোখের সংবাদ গুগল ট্রান্সলেটর দ্বারা বিভিন্ন ভাষায় পড়তে মেইন মেনুতে সিলেক্ট ল্যাংগুয়েজ অপশন এ যেয়ে ভাষা নির্ধারণ করুন* गूगल अनुवादक द्वारा दैनिक बांग्ला आई न्यूज को विभिन्न भाषाओं में पढ़ने के लिए, मुख्य मेनू में भाषा का चयन करें विकल्प पर जाकर भाषा का चयन करें।*

কুষ্টিয়ায় গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ৮ জনের মৃত্যু

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি
হালনাগাদ : শনিবার, ১৯ জুন, ২০২১, ৪:১৪ অপরাহ্ণ

কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ৮ জনের মৃত্যু হয়েছে । এর মধ্যে শুক্রবার রাতে ৭ জন ও শনিবার সকালে ১ জনের মৃত্যু হয়। বিষয়টি নিশ্চিত করেছে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ড. তাপস কুমার সরকার।

কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ডাঃ তাপস কুমার সরকার বলেন, শুক্রবার রাতে ৭ জন মারা গেছে। আর শনিবার সকালে মারা যান একজন। এটিই এ হাসপাতাল তথা জেলায় একদিনে সবচেয়ে বেশি মৃত্যু।

এরা হলেন বানিয়াপাড়ার আকমল হোসেন (৮৫), হরিশংকরপুরের রোজিনা খাতুন(৮৫), হাউজিং এর রওশন আরা( ৬০), দৌলতপুরের রজিনা খাতুন (৬৫), মিরপুরের সাইরা খাতুন(৭০), জুগিয়ার সেফালি খাতুন(৫০), কুমারখালীর করিমুজ্জামান(২৮), খোকসার রফিক শেখ (৬৫)।

এ নিয়ে কুষ্টিয়ায় মোট মৃত্যুের সংখ্যা ১৪৮ জন। ১৮ জুন ২৪ ঘন্টায় কুষ্টিয়া সিভিল সার্জনের তথ্যতমে ৩৬৮ জনের করোনা পরীক্ষা করে ১১২ জনের দেহে করোনা সনাক্ত হয়েছে। সনাক্তের হার৩০.৪৩%।

নতুন শনাক্তদের মধ্যে কুষ্টিয়া পিসিআর ল্যাবে ৩২৭ টি এবং এন্টিজেন টেস্ট ৪১ টি নমুনার মধ্যে যথাক্রমে ১০২ টি এবং ১০ টি পজিটিভ এসেছে। উপজেলা ভিত্তিক রিপোর্টে কুষ্টিয়া সদরে ৭৫ জন, কুমারখালী ১৬ জন, দৌলতপুরে ০৫ জন, ভেড়ামারায় ০৮ জন, মিরপুর উপজেলায় ০৪ জন ও খোকসায় ০৪ জন পজিটিভ এসেছে।

হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা ওর্য়াডে সিট খালি নেই। এদিকে কুষ্টিয়ায় করোনা সংক্রমনের হার বৃদ্ধি পাওয়ায় পৌর এলাকায় আবারো ৭ দিনের কঠোর বিধি নিষেধ আরোপ করেছেন জেলা প্রশাসক।

এদিকে, কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ডে ১০০ শয্যার বিপরীতে বর্তমানে ১১৩ জন রোগী ভর্তি রয়েছেন। ওয়ার্ডে নতুন করে আর কোনো রোগী ভর্তির সুযোগ নেই।

এ পরিস্থিতিতে হাসপাতাল থেকে ৩০ জন সাধারণ রোগীকে পাশের মুজিবুর রহমান মেমোরিয়াল ডায়াবেটিস হাসপাতালে স্থানাস্তর করেছে কর্তৃপক্ষ। হাসপাতালে দেখা দিয়েছে অক্সিজেন সংকট।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সগুলো থেকে যেসব রোগীকে উন্নত চিকিৎসার জন্য কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে নেওয়া হচ্ছে, সেসব রোগীর প্রত্যেকেরই অক্সিজেন প্রয়োজন হচ্ছে।

এ পরিস্থিতিতে জেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটি গত ১১ জুন মধ্যরাত থেকে অধিক সংক্রমিত কুষ্টিয়া পৌর এলাকায় ৭ দিনের কঠোর বিধিনিষেধ আরোপ করে। তবে এই বিধিনিষেধ অনেকটা কাগজেকলমেই সীমাবদ্ধ ছিল। মাঠ পর্যায়ে তা খুব একটা কার্যকর হতে দেখা যায়নি। শুক্রবার ওই বিধিনিষেধের মেয়াদ শেষ হলে নতুন করে আরও ৭ দিনের কঠোর বিধিনিষেধ জারি করে করোনা প্রতিরোধ কমিটি।

তবে শনিবার সকাল থেকে এই বিধিনিষেধ কার্যকর করতে প্রশাসনের ব্যাপক তৎপরতা লক্ষ্য করা গেছে। ঈদের পর থেকে কুষ্টিয়ায় করোনা সংক্রমণের মাত্রা কিছুতেই বাগে আনা যাচ্ছে না, ক্রমশ বেড়েই চলেছে। শুক্রবারও আক্রান্তের সংখ্যা শতাধিক ছাড়িয়েছে।

 


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর
Theme Created By Uttoronhost.com