রবিবার, ০১ অগাস্ট ২০২১, ০৪:৩৯ পূর্বাহ্ন
বিজ্ঞপ্তি
* To read Daily Banglar Chokh News in different languages ​​by Google Translator, going to `Select Language' option in the main menu.* ডেইলি বাংলার চোখের সংবাদ গুগল ট্রান্সলেটর দ্বারা বিভিন্ন ভাষায় পড়তে মেইন মেনুতে সিলেক্ট ল্যাংগুয়েজ অপশন এ যেয়ে ভাষা নির্ধারণ করুন* गूगल अनुवादक द्वारा दैनिक बांग्ला आई न्यूज को विभिन्न भाषाओं में पढ़ने के लिए, मुख्य मेनू में भाषा का चयन करें विकल्प पर जाकर भाषा का चयन करें।*

কালবৈশাখীতে সমগ্র দেশে নিহত-১১

ডেইলি বাংলার চোখ ডেস্ক
হালনাগাদ : সোমবার, ৫ এপ্রিল, ২০২১, ১:২২ পূর্বাহ্ণ

ঢাকাসহ সারাদেশের বিভিন্ন স্থানে অস্থায়ীভাবে দমকা ও ঝোড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি ও বজ্রবৃষ্টি বয়ে গেছে। কোথাও কোথাও ঘণ্টায় প্রায় ৬০ কি.মি. গতিতে আঘাত হেনেছে কালবৈশাখী ঝড়। গতকাল রোববার (৪ এপ্রিল) সন্ধ্যার পর শুরু হওয়া এই তাণ্ডবে সারাদেশে নিহত হয়েছেন ১১ জন। আহত হয়েছেন আরও অনেকে।

রাজধানীতে হঠাৎ বয়ে যাওয়া ঝড়ে শিশু তুয়া (৪), সায়মা আক্তার (৩৭) নামে এক নারী ও ফরিদ (৩৫) নামে এক রিকশাচালকসহ তিনজন আহত হয়েছেন। তারা ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের জরুরি বিভাগে চিকিৎসা নিচ্ছেন। সন্ধ্যা পৌনে ৭টায় হঠাৎ ঝড়ে তুবার মাথায় টাইলস পড়ে এবং ফুটপাতে খাবার খাওয়ার সময় দেয়াল ধসে ফরিদ আহত হন।

কুষ্টিয়ার ভেড়ামারা উপজেলায় কালবৈশাখী ঝড়ের তাণ্ডবে নির্মাণাধীন দোকানঘরের উড়ন্ত টিনে গলা কেটে রবিউল ইসলাম (৪০) নামের এক ব্যবসায়ীর মৃত্যু হয়েছে। রোববার সন্ধ্যায় ভেড়ামারা উপজেলার ধরমপুর ইউনিয়নের মহিশাডরা এলাকার দফাদার ফিলিং স্টেশনের সামনে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত রবিউল ইসলাম কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলার হোগলবাড়িয়া ইউনিয়নের শশিধরপুর এলাকার সাদ মন্ডলের বড় ছেলে। রবিউল পেঁয়াজের ব্যবসা করতেন। তিনি তিন মেয়ে সন্তানের জনক।

গাইবান্ধায় কালবৈশাখী ঝড়ে তিন নারী ও এক শিশুসহ ৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। রোববার বেলা ৩টার দিকে গাইবান্ধার সদর, সুন্দরগঞ্জ, পলাশবাড়ী, ফুলছড়ি ও সাদুল্লাপুরে কালবৈশাখী ঝড়ে এ প্রাণহানির ঘটনা ঘটে।

ঝড়ে নিহতরা হলেন- পলাশবাড়ী উপজেলার বেতকাপা ইউনিয়নের মোস্তাফুর গ্রামের গোফফার রহমান এবং ডাকেরপাড়া গ্রামের জাহানারা বেগম। সুন্দরগঞ্জ উপজেলার ধোপাডাঙ্গা ইউনিয়নের দোয়ারা গ্রামের ছোলায়মান মিয়ার স্ত্রী ময়না বেগম (৪০)। ফুলছড়ি উপজেলার গজারিয়া ইউনিয়নের কাতলামারি গ্রামের বিটুল মিয়ার স্ত্রী শিমুলী আক্তার (২৭)। সাদুল্লাপুর উপজেলায় আব্দুস সালাম সর্দার নামে এক ব্যক্তি ঝড়-আতঙ্কে মারা গেছেন।

এদিকে ঝড়ে আহত হওয়ার পর সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন দুজনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রংপুর মেডিকেল হাসপাতালে পাঠানোর পথে দুজনের মৃত্যু হয়। তারা হলেন সদর উপজেলার তিনগাছের তল এলাকার হিরু মিয়ার শিশুসন্তান মনির মিয়া (৫) ও ফুলছড়ি উপজেলার এরেন্ডাবাড়ি গ্রামের হারিস উদ্দিন (৩৫)।

ফরিদপুরের, আলফাডাঙ্গায় বছরের প্রথম কালবৈশাখী ঝড়ে গাছের ডাল পড়ে মা-মেয়ের মৃত্যু হয়েছে। রোববার সন্ধ্যায় উপজেলার বানা ইউনিয়নের টাবনী ঘোষবাড়ির সামনে এ ঘটনা ঘটে। জানা যায়, মধুখালী উপজেলার বাজিতপুর গ্রামের মো. জাহিদের স্ত্রী হালিমা (২৫) তার এক বছর চার মাস বয়সী শিশুকন্যা আফছানাকে নিয়ে আলফাডাঙ্গা উপজেলার বানা ইউনিয়নের শিরগ্রামে আত্মীয়ের বাড়ি বেড়াতে যান। সেখান থেকে সন্ধ্যায় ভ্যানযোগে তার বাবার বাড়ি বুড়াইচ ইউনিয়নের পাকুড়িয়া রওনা দেন।

সন্ধ্যা ৭টার দিকে বানা ইউনিয়নের টাবনী ঘোষবাড়ির সামনে পৌঁছালে কালবৈশাখী ঝড় শুরু হয়। এ সময় সজনে গাছের একটি বড় ডাল তাদের ওপর ভেঙে পড়ে। এতে চাপা পড়ে ঘটনাস্থলেই হালিমা মারা যান। মারাত্মক আহত শিশু আফছানাকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে বোয়ালমারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

কালবৈশাখী ঝড়ে নাটোরে বিকেল ৪টার দিকে পৌর সদরের কামারপাড়া ব্রিজ সংলগ্ন এলাকায় চলন্ত একটি প্রাইভেটকারের ওপর বেল গাছের মোটা ডাল ভেঙে পড়ে। নাটোর প্রতিনিধি জানান, এ সময় গাড়িটি ধীরগতিতে চললেও সামনের গ্লাস ও ছাদে বৈদ্যুতিক খুঁটির তার ছিঁড়ে গাছের ডালটি ভেঙে পড়ে। তবে গাড়িচালক সুমন, তার স্ত্রী, শিশু সন্তানসহ একই পরিবারের ৫ জন প্রাণে বেঁচে গেছেন। ঝড় কমলে বিকেল ৫টার দিকে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা গাছের ডাল কেটে গাড়িটি উদ্ধার করেন।

এদিকে মানিকগঞ্জে বৈরী আবহাওয়ার কারণে পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌ-পথে রোববার সন্ধ্যা পৌনে ৬টার দিকে ছোট বড় সব ধরনের ফেরি ও লঞ্চ চলাচল বন্ধ করে দেয় কর্তৃপক্ষ। প্রায় ২ ঘণ্টা বন্ধ থাকার পর সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে ফেরি ও লঞ্চ চলাচল শুরু হয়।

 


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর
Theme Created By Uttoronhost.com